মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

খাল ও নদী

শঙ্খ নদী

ছোট কাল থেকে দেখে আসা সেই নদী যার নাম শঙ্খ নদী। বান্দরবান ও চট্টগ্রাম শহরের সাথে যোগাযোগ করে দেয় এই নদী। গ্রামের মানুষেরা আগে অনেকাংশে নির্ভর ছিল। কারন এরা ব্যবসায় করত এই নদী দিয়ে । যার যোগাযোগ ব্যবস্থা ছিল নৌকা। গ্রামের মানুষের শত স্মৃতি জড়িয়ে আছে এই নদী।

বাংলাদেশ এবং আরাকান রাজ্যের মাঝামাঝি পার্বত্য অঞ্চল আরাকানের মদক পাহাড় থেকে শংখ নদীর উৎপত্তি। আরাকান রাজ্যের সর্বপূর্বে মদক পাহাড় অবস্থিত। শংখ নদীর দৈর্ঘ্য ২৭০ কি: মি:। এটা বান্দবনের রোয়াংছড়ি এবং বান্দরবন সদর হয়ে চন্দনাইশের ধোপাছড়ি হয়ে পশ্চিম দিকে গিয়ে আবার বাঁশখালী খানখানাবাদ ইউনিয়নে এবং আনোয়ারা উপজেলার রায়পুর হয়ে কর্ণফূলী নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় মিলিত হয়েছে। ১৮৬০ সালে তৎকালীন ইংরেজ সরকার এ নদীটিকে গেজেটভূক্ত করেন। তখন এ নদীটির নাম করা হয় সাংগু রিভার।তবে বান্দরবানের আদিবাসীরা এ নদীটিকে রি গ্রাই খিয়াং বলে। তবে সাংগু নদীর প্রকৃত নাম কীভাবে সাংগু হলো এটা এখনো অনাবিষ্কৃত। এ নদীকে নিয়ে চট্টগ্রামে অনেক গান ও অনেক গীতিকাব্য রচিত হয়েছে।

ছবি